মিসাইল পরীক্ষার জের, ইরানকে ট্রাম্পের নোটিশ আপডেট: 03-02-2017   

আন্তর্জাতিক চুক্তি ভেঙে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার জেরে আপাতত 'নোটিশে আছে' ইরান। বৃহস্পতিবার ঘোষণা করলেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

তাঁর দাবি, ইরানের পতন আসন্ন।

এদিন টুইটারে ট্রাম্প জানিয়েছেন, 'ব্যালিস্টিক মিসাইল পরীক্ষামূলক উত্‍ক্ষেপণের দায়ে ইরানকে নোটিশ পাঠানো হয়েছে। আন্তর্জাতিক পরমাণু চুক্তির জন্য ওদের আমেরিকার কাছে কৃতজ্ঞ থাকা উচিত ছিল। '

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি আমেরিকার জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা মাইকেল ফ্লিনও একই সুরে ইরানকে আক্রমণ করেন। তবে মুসলিম রাষ্ট্রের প্রতি এই হুমকির বাস্তব প্রভাব সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য এখনও পর্যন্ত দেয়নি হোয়াইটহাউস। আন্তর্জাতিক কূটনীতিতে এই ইশ্যুতে ইরানকে শেষ পর্যন্ত ঠিক কতটা চাপে রাখতে পারবে ওয়াশিংটন, তা এখন দেখার।

গত রবিবার ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার পরে বুধবার ফ্লিন জানান, 'রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের নির্দেশাবলী নম্বর ২২৩১ লহ্ঘন করে' ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করেছে ইরান। আন্তর্জাতিক চুক্তি অনুযায়ী, ইরানকে পারমাণবিক অস্ত্র সংবলিত ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করতে নিষেধ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, অতীতেও পরীক্ষামূলক ভাবে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র উত্‍ক্ষেপণ নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছিল। ট্রাম্প প্রশাসনের এক আধিকারিকের মতে, সেই পরীক্ষায় রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করা হয়নি। তবে প্রশাসনের অন্য এক কর্মকর্তা উল্টো মত পোষণ করেছেন। তাঁর মতে, সেই সময়ও আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা অমান্য করেছিল তেহরান।

একই দিনে ট্রাম্প ফের টুইট করেন, 'ইরানের অবস্থা শোচনীয় হয়ে গিয়েছিল। প্রায় পতনের মুখে পৌঁছে গিয়েছিল যদি না সেই সময় আমেরিকা তাকে ১৫০ বিলিয়ন ডলার মূল্যের ইরান ডিলের মাধ্যমে লাইফলাইন দিত। ’